সর্বশেষ
 গ্রিসে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল সাবান মিয়ার সাবেক ছাত্রদল নেতা আলী চৌধুরীর বাসায় সন্ত্রাসী হামলা ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা জহির উদ্দিন ইমন জিএসসি ইউকের উদ্দ্যোগে সুনামগঞ্জে “ঈদ স্মাইল প্রজেক্ট” এর নগদ অর্থ বিতরণ তাহিরপুরে হাজী আব্দুল অদুদ-র পরিবারের পক্ষ থেকে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ এন.আর.বি ব্যাংক লিঃ এর মোঃ জামিল ইকবাল ও পরিচালক জাহেদ ইকবাল এর ঈদ উপহার বিতরণ স্পেনে কোথায় কখন ঈদুল ফিতরের জামাত হবে জিএসসি ইউকের উদ্দ্যোগে জগন্নাথপুরে “ঈদ স্মাইল প্রজেক্ট” এর নগদ অর্থ বিতরণ নকশী বাংলা ফাউন্ডেশন সিলেটের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সাবেক সাংসদ দিলদার হোসেন সেলিম এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এম আসকির আলী

এক বাবার ২৭ স্ত্রী, ভাইবোন ১৫০!

  |  ১৮:২১, জানুয়ারি ২৩, ২০২১

কানাডার অন্যতম পরিচিত ব্যক্তি উইনস্টোন ব্ল্যাকমোর। ৬৪ বছরের এই ব্যক্তির স্ত্রীর সংখ্যা ২৭। তাঁর ছেলেমেয়ে রয়েছে ১৫০টি। বিশাল এই পরিবারের সদস্যরা কেউ আলাদা থাকেন না, সকলেই একই বাড়িতে থাকেন।

ওই পরিবারের সদস্য ১৯ বছরের মার্লিন ব্ল্যাকমোর সম্প্রতি নিজের এই বিশাল পরিবাররে কথা শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কারও জন্মদিনে কীভাবে উৎসব হয় তাদের বাড়িতে, এত সংখ্যক ভাইবোনের সঙ্গে স্কুলে যাওয়া, একসঙ্গে থাকা নিয়ে নানা অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন মার্লিন।

কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ার বাউন্টিফুলে তার বিশাল পরিবারের সঙ্গে থাকেন মার্লিন। তিনি ছাড়াও তার দুই ভাই মুরারি এবং ওয়ারেনও নিজেদের পরিবারের কথা শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এত জনের সঙ্গে থাকা যেমন মজার, তেমনই অস্বস্তিরও- ওই তিন জনের পোস্টে উঠে এসেছে সেই বিষয়টিও।

মার্লিন জানিয়েছেন, ১৫০ জন ভাইবোনের মধ্যে সবথেকে বড়জনের বয়স ৪৪ বছর। সবথেকে ছোটজনের বয়স ১ বছর। প্রত্যেকে তাদের গর্ভধারিণী মাকে ‘মাম’ বলে ডাকেন। বাকি সৎ মায়েদের ডাকেন ‘মাদার’ বলে। একই দিনে একাধিক মায়ের সন্তান প্রসবের ঘটনাও এই বাড়িতে রয়েছে।

মার্লিন জানিয়েছেন, ভাইবোনেরা একই স্কুলে পড়ে। সেই স্কুলের মালিক তার বাবা উইনস্টোন। অস্বাভাবিক বড় পরিবারে নিজের ভাইবোনদের সামলাতে সামলাতে বাইরের কারও সঙ্গে তাদের সেভাবে বন্ধুত্ব গড়়ে ওঠেনি বলে জানিয়েছেন মার্লিন।

বাবা, ১৫০ ভাইবোন এবং ২৭ জন মাকে নিয়ে বিশাল পরিবারের সদস্যরা কেউ আলাদা থাকেন না। সকলেই একই বাড়িতে থাকেন। তাদের সেই বাড়ির নাম মোটেল হাউস।

এতো বড় পরিবারের জন্য বাজার থেকে জিনিস কেনাও কতটা সমস্যার তাও তারা হাড়ে হাড়ে টের পান। সে জন্যই তাদের বাড়ির মধ্যেই শাকসবজির চাষ হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ