সর্বশেষ
 এনআরবি ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন মোঃ জামিল ইকবাল মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় যুবলীগ নেতাকে কোপালেন আরেক নেতা ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশী পাসপোর্ট নিয়ে সৌদি গেছেন: রাষ্ট্রদূত আওয়ামী লীগের বিধানে দয়ামায়ার লেশমাত্র নেই: ফখরুল ২৮ জেলায় নির্মিত হবে সিনেপ্লেক্স: তথ্যমন্ত্রী ঢাকা ফ্রুটাস কোম্পানি স্পেন শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় উদ্যোগ প্রথম দিনেই যেসব কাজ করবেন বাইডেন মালালা শিক্ষাবৃত্তির বিলে সই করলেন ট্রাম্প নোয়াখালীতে আবারও নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ লন্ডনের কুইন্স পার্কে মাস্ক বিহীন হেল্থ সেক্রেটারি সমালোচিত

ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তিতে ইইউ রাষ্ট্রদূতদের অনুমোদন

  |  ০৫:৩০, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০

যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তি সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন করেছেন ইইউ’র ২৭টি সদস্যদেশের রাষ্ট্রদূতরা। এর মধ্য দিয়ে চুক্তিটি কার্যকরের পথ প্রশস্ত হল।

বিবিসি জানায়, আগামী বুধবার বিলটি অনুমোদনের জন্য যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে তোলার কথা রয়েছে। সেখানে অনুমোদনের পর ১ জানুয়ারি নাগাদ সেটি আইনে পরিণত হতে পারে।

প্রায় নয় মাস আলোচনার পর যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ওই চুক্তিতে একমত হয় এবং মঙ্গলবার ইইউ’র ২৭ সদস্য রাষ্ট্রের সরকার তা লিখিতভাবে অনুমোদন করবে বলে জানিয়েছে ‘দ্য জার্মান ইইউ প্রেসিডেন্সি’।

চুক্তি প্রকাশের আগে রাষ্ট্রগুলোর সরকার ‘ইইউ-ইউকে ট্রেড অ্যান্ড কো-অপারেশন এগ্রিমেন্ট’ বিশ্লেষণের জন্য তিন দিন সময় হাতে পান। যদিও ১,২৪৬ পাতার ওই চুক্তির খসড়া কয়েক সপ্তাহ আগেই দেখার সুযোগ পেয়েছিলেন তারা।

যুক্তরাজ্য যখন ইইউ’র একক বাজার এবং কাস্টমস ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাবে তখন উভয়পক্ষ কিভাবে বাণিজ্য করবে সে বিষয়ে চুক্তিতে একটি কাঠামো তৈরি করা হয়েছে।

এই চুক্তির মাধ্যমে ইইউ’র সঙ্গে যুক্তরাজ্যর প্রায় ৫০ বছরের সম্পর্ক ছিন্নের প্রক্রিয়া শেষ হতে চলেছে।

বেঁধে দেওয়া সময়ের একদিন আগেই ইইউ নেতারা যুক্তরাজ্যের সঙ্গে একটি বাণিজ্য চুক্তিতে উপনীত হতে পারার খবর প্রকাশের পর দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এক টুইটে জানান, তিনি চুক্তিটি নিয়ে ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলেছেন।

তিনি বলেন, ‘‘আমি এই চুক্তিকে স্বাগত জানাচ্ছি। সমান সার্বভৌমত্ব বজায় রেখে আমাদের সম্পর্কের নতুন শুরুর ক্ষেত্রে এই চুক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।”

‘‘আমি এই চুক্তির আনুষ্ঠানিক অনুমোদন এবং জলবায়ু পরিবর্তন রোধের মত বিষয় যেগুলো নিয়ে উভয়পক্ষ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করতে চায় তা নিয়ে একসঙ্গে কাজ করার অপেক্ষায় আছি।”

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ