SylhetNewsWorld | প্রায় দুই বছর পরে ঈদের জামাত অষ্ট্রিয়ার ভিয়েনায় - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ
 আত্মসমর্পণ করে আজ জামিন চাইবেন সম্রাট ইউক্রেনকে রাশিয়ার কাছে ভূখণ্ড ছাড়ার পরামর্শ কিসিঞ্জারের স্থান-কাল বুঝে উন্নয়ন পরিকল্পনার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ঘরে বসে পাওয়া যাবে ভুমি সেবা: বিভাগীয় কমিশনার তারা ক্ষমতায় থেকেও ভালো নেই, ঘুম হয় না: মোশাররফ গণকমিশনের নামে কেউ বিশৃঙ্খলা করলে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইউক্রেনের জন্য ৪০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রের গাফ্ফার চৌধুরীর মৃত্যুতে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক অর্থনীতি নিয়ে জরুরি বৈঠকের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর পাল্টা ব্যবস্থা, ফ্রান্স-ইতালি-স্পেনের ৮৫ কূটনীতিক বহিষ্কার করল রাশিয়া

প্রায় দুই বছর পরে ঈদের জামাত অষ্ট্রিয়ার ভিয়েনায়

  |  ২২:২৪, মে ০২, ২০২২

 

মাইদুল মিয়া অষ্ট্রিয়া (ভিয়েনা) থেকেঃ

করোনা মহামারীর পরে এই প্রথম অষ্ট্রিয়ার ভিয়েনায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করলো অষ্ট্রিয়ার বাংলাদেশীরা।
ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য আর বিপুল আনন্দের মধ্য দিয়ে অষ্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় বায়তুল মোকাররম মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ ও আনন্দ উদযাপন করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। চাঁদ দেখা ও মুসলিম উম্মাহর পবিত্র ভূমি সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে আজ সোমবার (২ মে) ইউরোপের অন্য দেশের মতো অষ্ট্রিয়ায় বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশি মুসলিমরা ঈদের নামাজ আদায় করেন।
যদিও এখানে ঈদের দিন সরকারি ছুটি না থাকায় নামাজ আদায় করে যার যার কাজে জায়গায় চলে যেতে দেখা গেছে।তবে স্কুলে বাচ্চাদের বিশেষ ছুটি থাকায় শিশুদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পরার মতো।
ভিয়েনায় বাংলাদেশের কমিউনিটির সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় বাইতুল মোকাররাম ইসলামিক সেন্টার মসজিদে স্থানীয় সময় সকাল ৮টায়।এতে উপস্থিত ছিলেন অষ্ট্রিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মান্যবর আব্দুল মুহিত, কাউন্সিলর ও দূতাবাস প্রধান কর্মকর্তা তারাজুল ইসলাম, অষ্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান নাসিম,দুতালয় কর্মকর্তা তানভীর আলম তরফদার, কমিউনিটি নেতা মাইদুল মিয়া, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেন, আকতার হোসেন, এমরান হোসাইন সহ বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠন, সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ আরও সাধারণ ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা।
এ ছাড়াও অষ্ট্রিয়ার আরও বেশ কিছু মসজিদে স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ও ৯.৩০ টায় দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়।জামাত গুলোতে বাংলাদেশের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের অভিবাসী মুসল্লিরা অংশগ্রহণ করেন। অনেক বাংলাদেশি নারীও ঈদের নামাজ পড়েন। নামাজ শেষে মোনাজাতে মুসলিম উম্মাহর সুখ ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।নামাজের শেষে মসজিদে আগত মুসল্লীদের জন্য হরেক রকম মিষ্টি খাবারের আয়োজন রাখা হয়।এতে ভিয়েনার
আশপাশ এলাকা থেকে আগত বাংলাদেশিরা একে অপরের সঙ্গে ঈদের কোলাকুলি ও কুশলাদি বিনিময় করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ