SylhetNewsWorld | বৃষ্টির দেবীকে খুশি করতে ৬ বালিকাকে নগ্ন করে হাঁটানো হলো - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ
 মাদ্রিদে আল আমান মসজিদে’র কুরআন শিক্ষার ফলাফল ও পুরস্কার বিতরণ স্পেনে সংবর্ধিত হলেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সিরাজুল ইসলাম তসলু নকশী বাংলা ফাউন্ডেশন সম্পাদকের পিতৃবিয়োগ বিভিন্ন মহলের শোক স্পেনে বায়তুল মুকাররম মসজিদের খাদিম আব্দুস শুক্কুর অসুস্থঃদোয়া কামনা দারুল কিরাত মজিদিয়া ফুলতলি ট্রাস্ট মাদ্রিদ শাখার পুরস্কার বিতরণী সম্পন্ন স্পেনে অনুষ্ঠিত হলো বৃহত্তর নোয়াখালী সমিতি’র অভিষেক বাজেট অনুষ্ঠানে মেয়র আরিফের ঘোষণায় বিব্রত সাংবাদিকরা স্পেন থেকে আফগানিস্তান থেকে উদ্ধারকৃত ছয়জন বাংলাদেশীকে দেশে প্রত্যাবর্তন বাংলাদেশ দূতাবাস এথেন্স-এ ইলেক্ট্রনিক পাসপোর্ট সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন স্বাধীনতার সূবর্ন জয়ন্তিতে স্পেনে ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল সম্পন্ন

বৃষ্টির দেবীকে খুশি করতে ৬ বালিকাকে নগ্ন করে হাঁটানো হলো

  |  ১৬:৫৫, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০২১

বৃষ্টি নামানোর জন্য ভারতের মধ্য প্রদেশের এক গ্রামে ৬টি বালিকাকে নগ্ন করে হাঁটানো হয়েছে। তাদের বেশির ভাগেরই বয়স ৫ বছর। এ ঘটনা ঘটেছে প্রচণ্ড খরায় জ্বলতে থাকা বুন্ডেলখণ্ড অঞ্চলের এক গ্রামে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। ঘটনার কয়েকটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এতে দেখা যায়, বালিকাদের নগ্ন করে ফেলা হয়েছে। তাদের কাঁধের ওপর দেয়া হয়েছে কাঠের তৈরি বর্শা। এর মাথায় বেঁধে দেয়া হয়েছে ব্যাঙ।

স্থানীয়রা বিশ্বাস করেন, এর মধ্য দিয়ে বৃষ্টির দেবী সন্তুষ্ট হবেন এবং ওই অঞ্চলে বৃষ্টি বর্ষণ করবেন।
এ ঘটনায় দামোহ জেলা প্রশাসনের কাছে রিপোর্ট চেয়েছে ভারতের শিশু অধিকার সুরক্ষা বিষয়ক জাতীয় কমিশন। গ্রামটি ওই জেলায় অবস্থিত। তবে ওই ঘটনা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো অভিযোগ পাওয়ার কথা অস্বীকার করেছে মধ্যপ্রদেশ পুলিশ। তবে তারা তদন্ত শুরু করেছে। ভারতের সরকারি বার্তা সংস্থা পিটিআই’কে দামোহ জেলার এসপি ডিআর তেনিওয়ার বলেছেন, যদি দেখা যায় কেউ ওই বালিকাদের নগ্ন হয়ে হাঁটতে বাধ্য করেছেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ওই ভিডিওতে দেখা যায় এসব বালিকা দলবেঁধে হাঁটছে। এ সময় তাদের সঙ্গে বৃষ্টি নামানোর গীত গেয়ে অগ্রসর হচ্ছেন একদল নারী। তাদের এই বৃষ্টি নামানোর গীত চলতে থাকে এবং তারা গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে থামে। বাড়িগুলো থেকে এ সময় সংগ্রহ করা হয় খাদ্যশস্য। পরে তা দান করা হয় স্থানীয় একটি মন্দিরের কমিউনিটি কিচেনে। এতে যোগ দিয়েছিলেন এমন একজন নারী বলেছেন, আমরা বিশ্বাস করি এর ফলে বৃষ্টি নামবে।

দামোহ ডিস্ট্রিক্ট কালেকটর এস কৃষ্ণা চৈতন্য বলেছেন, যে বালিকাদের নগ্ন করে এই বৃষ্টি নামানোর আয়োজন করা হয়েছে, তাদের পিতামাতা এতে সম্মতি দিয়েছিলেন। এমনকি তারা এতে অংশও নিয়েছিলেন। এসব ক্ষেত্রে প্রশাসন শুধু এমন কুসংস্কারের বিষয়ে গ্রামবাসীকে সচেতন করতে পারে। তাদেরকে বোঝাতে পারে যে, এই ধরনের রীতি পালনের মধ্যে কোনো ফল আসে না।

ভারতের কৃষি প্রধানত নির্ভর করে বৃষ্টির ওপর। কিন্তু বহু এলাকায় বৃষ্টিপাত হয় না বললেই চলে। সেসব এলাকা খরায় পোড়ে। তখন মানুষ বৃষ্টির দেবীকে খুশি করার জন্য এ ধরনের রীতির চর্চা করেন। ফলে এটা এখন ভারতের এক রকম রীতিতে পরিণত হয়েছে। নানা রকম রীতি পালন করা হয়। এর মধ্যে কোনো কোনো সম্প্রদায় আগুন পুজা করেন। কেউ বিয়ে করেন ব্যাঙ, গাধাকে। অথবা বৃষ্টি নামানোর জন্য গান গেয়ে বেড়ান দলবদ্ধভাবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ