সর্বশেষ

বাইডেন ও হ্যারিসকে বিশ্বনেতাদের শুভেচ্ছা

  |  ১৭:১৬, জানুয়ারি ২১, ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিষেকের পর জো বাইডেন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে সারাবিশ্ব থেকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠানো হচ্ছে। খবর বিবিসি’র।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ বাক্য পাঠ করেন কমলা হ্যারিস। এর কিছুক্ষণ পর যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন বাইডেন।

অভিষেকের পরপরই শুভেচ্ছা বন্যায় ভাসছেন বাইডেন ও হ্যারিস। বিশ্বের রাষ্ট্রনেতারা শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্টকে।

এ তালিকায় রয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, আইরিশ প্রধানমন্ত্রী মাইকেল মার্টিন, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ, চিলির প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরা, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা, ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুজেপে কোন্তে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ইসরায়েলের প্রধানন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবং পোপ ফ্রান্সিস।

বিবিসি জানায়, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছেন, ‘তাদের অভিষেক যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কঠিন এ সময়ে এক পা এগিয়ে যাওয়া। এটা যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্র উভয়ের জন্যইও বড় মুহূর্ত। যাদের যৌথভাবে একই এজেন্ডা রয়েছে।’

বাইডেন ও হ্যারিসকে শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইটও করেছেন জনসন।

আইরিশ প্রধানমন্ত্রী মাইকেল মার্টিন বলেন, ‘আজ আয়ারল্যান্ডের একজন প্রকৃত বন্ধু জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হয়েছেন। আমি আমাদের দুই মহান দেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তোলার অপেক্ষায় আছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ একটি ঐতিহাসিক দিনও বটে। কারণ, প্রথম কোনো নারী যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন। প্রার্থনা করি, আগামী দিনগুলোতে তারা যে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হবেন সেগুলোতে সাফল্য অর্জন করবেন।’

ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুজেপে কোন্তে বলেন, ‘এটা গণতন্ত্রের জন্য দারুণ এক দিন। যেটা আমেরিকার সীমানা ছাড়িয়ে অনেক দূর পৌঁছে যাচ্ছে।”

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো কোভিড-১৯ মোকাবেলা, অর্থনীতি পুনরুদ্ধার এবং জলবায়ুসহ নানা ইস্যুতে একযোগে কাজ করে যাওয়ার আশা প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নেতৃত্বকে স্বাগত জানিয়েছেন।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শুভেচ্ছা বার্তায় বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট বাইডেন এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন। জাপান এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বন্ধুত্ব অত্যন্ত গভীর।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জো বাইডেন এবং কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়ে বেশকিছু টুইট করেছেন।

চিলির প্রেসিডেন্ট সেবাস্তিয়ান পিনেরা বলেন, ‘বাইডেন ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব বুঝে নিলেন। আমি তাঁর জন্য মঙ্গল কামনা করছি।’

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে অভিনন্দন। বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সম্পৃক্ততার মধ্য দিয়ে অংশীদারিত্ব গড়ে তোলা, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই, জনস্বাস্থ্যের উন্নতি, দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই এবং অঞ্চল ও এর বাইরে শান্তি প্রতিষ্ঠায় পাকিস্তান-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে শক্তিশালী অংশীদারিত্ব গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করার অপেক্ষায় রয়েছি।’

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস বলেন, ‘এখন সময় একই সঙ্গে কাজ করার… যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রশাসন এরই মধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছে। আমরা সব সময় সব বিষয়ে একমত হতে পারবো না, কিন্তু আমরা কখনোই সঙ্কটের সমাধান খুঁজে বের করার চেষ্টা ছেড়ে দিতে পারি না।’

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নেতৃত্ব দেশে শান্তি, সংহতি, পারষ্পরিক বোঝাপড়া, সম্প্রীতির বাতাবরণ ফিরিয়ে আনুক, ঈশ্বরের কাছে সেই কামনা করে বাইডেন ও হ্যারিসকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস।

যুক্তরাষ্ট্র-ইসরায়েল সম্পর্ক আরও মজবুত করা এবং ইসরায়েলের সঙ্গে আরবদের শান্তি প্রচেষ্টা আরও এগিয়ে নেওয়ার কামনায় বাইডেন ও হ্যারিসকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইসরায়েলের প্রধানন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

এদিকে ফিলিস্তিনিরা ট্রাম্প আমলের অন্যায় নীতি থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট এবং ভাইস প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানিয়েছে। আর ট্রাম্পের ইসরায়েল ঘেঁষা নীতির কারণে তার বিদায়ে কোনও দুঃখবোধ নেই বলেও জানিয়েছে তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ