SylhetNewsWorld | হংকং থেকে পালানোর চেষ্টা করায় ১০ জনকে জেলে দিল চীন - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ
 নতুন বছর কে স্বাগত জানাতে বর্ণিল সাজে স্পেন গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেনের নির্বাচন কমিশন গঠন স্পেনের মন্ত্রীর সাথে বাংলাদেশের রেলমন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত মাদ্রিদে গাজীপুর এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন গ্রিসে রন্ধন শিল্পের প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদ বিতরণ করলেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী গ্রিসে বাংলাদেশিদের জন্য শ্রমবাজার উন্মুক্ত ও বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠা সিলেট সদর উপজেলা ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ফ্রান্সের কমিটি সিলেট চেম্বারের নির্বাচন শতভাগ নিরপেক্ষ করতে আমরা বদ্ধপরিকর: জলিল প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীকে গ্রীস আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা পাঁচদিনের সফরে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী গ্রিসে

হংকং থেকে পালানোর চেষ্টা করায় ১০ জনকে জেলে দিল চীন

  |  ১৯:১৫, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০

হংকং থেকে স্পিডবোর্ডে তাইওয়ানের উদ্দেশে অবৈধভাবে পাড়ি দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে ১০ অধিকারকর্মীকে জেল দিয়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ।

বিবিসি জানিয়েছে, অধিকারকর্মীদের আগস্টে আটক করা হয়েছে। চীনা পার্লামেন্টে জুন মাসে পাস হওয়া নতুন নিরাপত্তা আইনে তাদের অভিযুক্ত করেছে।

সিএনএন জানিয়েছে, আটকদের অধিকাংশ হংকংয়ে সরকারবিরোধী আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। কেউ কেউ জামিনে ছিলেন বা বিচারের মুখোমুখি ছিলেন। আদালত জানিয়েছে, তারা প্রত্যেকই দোষ স্বীকার করেছেন।

এই ১০ জনের মধ্যে একজনকে দুই বছর এবং একজনকে তিন বছরের জেল দিয়েছে ইয়ানতিয়ান পিপলস কোর্ট। বাকি আটজনের সাত মাস করে জেল দেয়া হয়েছে। এছাড়া সাজাপ্রাপ্তদের দেড় হাজার থেকে তিন হাজার ডলার পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছে।

তাইওয়ান পালানোর পথে আগস্টে মোট ১২ জনকে আটক করে কোস্টগার্ড। তাদের মধ্যে দুইজনের বয়স ১৮ বছরের নিচে হওয়ায় বুধবার সকালে হংকং পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয় আদালত।

আদালতে বিচার শুরুর আগে আটক ১২ জনই ১০০ দিনের বেশি সময় আটক ছিলেন। তাদের পরিবার, হংকংয়ের রাজনীতিবিদ, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য তাদের মুক্তির জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছিল।

রয়টার্স জানিয়েছে, আসামিদের পক্ষে শুনানির জন্য তাদের পরিবারের সদস্যরা আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছিলেন। কিন্তু আসামিদের সঙ্গে আইনজীবীদের কোনো কথা বলার সুযোগই দেওয়া হয়নি। অধিকার সংগঠনগুলো এই বিচারপ্রক্রিয়ার তীব্র সমালোচনা করেছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের পরিচালক ইয়ামিনি মিশরা এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘অন্যায় বিচারের পর এই রায় কার্যকর করা হয়েছে, যেখানে চীনা ফৌজদারি ব্যবস্থায় যে কারো বিচার হলে এমন বিপজ্জনক অবস্থায় হতে পারে। হংকংয়ের এই তরুণরা চীনের কারাগারে নির্যাতন ও অন্যায় আচরণের শিকার হতে পারে।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ