SylhetNewsWorld | আনজুমানে আল ইসলাহ ফ্রান্সের বদর দিবস ও ইফতার মাহফিল - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ
 আত্মসমর্পণ করে আজ জামিন চাইবেন সম্রাট ইউক্রেনকে রাশিয়ার কাছে ভূখণ্ড ছাড়ার পরামর্শ কিসিঞ্জারের স্থান-কাল বুঝে উন্নয়ন পরিকল্পনার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ঘরে বসে পাওয়া যাবে ভুমি সেবা: বিভাগীয় কমিশনার তারা ক্ষমতায় থেকেও ভালো নেই, ঘুম হয় না: মোশাররফ গণকমিশনের নামে কেউ বিশৃঙ্খলা করলে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইউক্রেনের জন্য ৪০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রের গাফ্ফার চৌধুরীর মৃত্যুতে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক অর্থনীতি নিয়ে জরুরি বৈঠকের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর পাল্টা ব্যবস্থা, ফ্রান্স-ইতালি-স্পেনের ৮৫ কূটনীতিক বহিষ্কার করল রাশিয়া

আনজুমানে আল ইসলাহ ফ্রান্সের বদর দিবস ও ইফতার মাহফিল

  |  ১৫:৫৭, এপ্রিল ২১, ২০২২

১৭ই রামাদ্বান ১৪৪৩ হিজরী সোমবার মোতাবেক আনজুমানে আল ইসলাহ ফ্রান্স এর উদ্দ্যোগে গার্দ দ্যো নর্দ “কাফে বাংলা রেষ্টুরেন্টে ” সংগঠনের সভাপতি হাফেজ এখলাছুর রহমান রাজু এর সভাপতিত্বে  এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, মুহাম্মদ আবু সিদ্দীক আনসারীর পরিচালনায় যথাযোগ্য মর্যাদার সহিত ঐতিহাসিক বদর দিবস উপলক্ষে পুরো দিনব্যাপী কোরআন খতম, দালাইলুল খাইরাত খতম, সুরা ইয়াসিন খতম, সহ ইসলামের তাৎপর্য, ঐতিহাসিক বদর দিবসের তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করেন মাওলানা মাসুক আহমেদ, এছাড়াও ধর্মীয় দিক নিয়ে আলোচনা করেন মির্জা শফিকুর রহমান, মাওলানা কাজী আব্দুল মুহিত , হাফেজ জামাল আহমেদ, ধর্মীয় ইবাদতের মাধ্যমে যথাযোগ্য দিনটি পালন করা হয়েছে ৷

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন শাহজাহান আব্দুল আজিজ জায়েদ হাফিজ রিপন আহমদ৷ নাতে রাসুল ﷺ পরিবেশন করেন মোঃ সিদ্দিকুর রহমান নূবেল, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আহসান হাবীব শাহ।

মহতি মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন আব্দুল লতিফ খলিল, জিল্লুল রহমান, মুনাজ্জিল আহমদ, সৈয়দ মাহদী ইসলাম, কামাল আহমদ, রেদোয়ান আহমদ, মাওলানা আমিন আহমদ, সাকেল জায়ান, সাদিক আহমদ এপলু, শাহেদ আহমদ প্রমূখ নেতৃবৃন্দ ৷
এছাড়াও প্যা‌রিসের বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ি, রাজনিতিবিধ, সাংবাদিক সহ সাধারণ প্রবাসিরা উপস্থিত হয়ে ঐতিহাসিক বদর দিবসের আলোচনা ও ইফতার মাহফিলে যোগদান করেন।

বদর হচ্ছে সৌদি আরবের
আল মদিনা প্রদেশের একটি শহর। এটি মদিনা
থেকে ৮০ মাইল (১৩০ কিমি) পূর্ব দিকে অবস্থিত।
৬২৪ সালে মদিনার মুসলমান ও মক্কার কুরাইশদের মধ্যে বদরের যুদ্ধ সংঘটিত হয়।
এই যুদ্ধে মুসলমান বাহিনীর পক্ষে নেতৃত্ব দেন স্বয়ং হযরত মুহাম্মাদ ﷺ, হযরত আবু বকর (রাঃ), হযরত উমর ইবনুল খাত্তাব (রাঃ), হযরত হামজা ইবনে আবদুল মুত্তালিব (রাঃ), হযরত আলী ইবনে আবি তালিব (রাঃ)।
বদরের যুদ্ধে মুসলমান বাহিনীর সদস্য সংখ্যা ছিলো ৩১৩ জন। ২টি ঘোড়া, ৭০টি উট।
এই ৩১৩ জনকে বদরী সাহাবী বলা হয়। এদের মধ্যে ৮০ জন ছিলো মুহাজির সাহাবী ও ২৩৩ জন ছিলো আনসার সাহাবী। ইসলামের ইতিহাসে এটি প্রথম প্রধান যুদ্ধ। এই জয়ের ফলে মুসলিমদের ক্ষমতা পূর্বের তুলনায় আরও বৃদ্ধি পায়।

এবং মক্কার কুরাইশদের পক্ষে নেতৃত্বে ছিল আবু জাহল ⱶ উতবা ইবনে রাবিয়া ⱶ উমাইয়া ইবনে খালাফ ⱶ ১০০০জন। ১০০টি ঘোড়া, ৭০০টি উট।উপরোক্ত কথাগুলো আলোচনা করেন।

পরিশেষে বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা চেয়ে সংগঠনের সভাপতি হাফেজ এখলাছুর রহমান রাজু দোয়া পরিচালনা শেষে ইফতারি বিতরনের মাধ্যমে সমাপ্তি করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ