SylhetNewsWorld | ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম দফা বিতর্কে পাল্টাপাল্টি আক্রমণ - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ
 প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীকে গ্রীস আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা পাঁচদিনের সফরে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী গ্রিসে পাঁচদিনের সফরে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী গ্রিসে স্পেনে বাংলাদেশী শিশুরা স্পানিশ ক্লাবে ক্রীড়া নৈপূণ্য প্রদর্শন করছে বেগম জিয়ার রোগমুক্তির কামনায় কোকো স্মৃতি সংসদ ইউরোপের দোয়া এনআরবি ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ জামিল ইকবাল দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ করদাতা নির্বাচিত স্পেনে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে নির্বাচন কমিশনের মতবিনিময় সভা মাদ্রিদে গাজীপুর এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন স্পেনে নির্বাচন কমিশনার খোরশেদ আলম মজুমদার, সদস্য সচিব মোঃ দুলাল সাফা বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইন স্পেনের নির্বাচন কমিশন গঠন

ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম দফা বিতর্কে পাল্টাপাল্টি আক্রমণ

  |  ০৯:২৮, জুন ০৬, ২০২১

আগামী ১৮ই জুন ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এতে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হয়েছেন সাতজন প্রার্থী। বাকিরা অযোগ্যতার কারণে ঝরে পড়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এখন পর্যন্ত ফ্রন্টরানার হিসেবে আছেন বিচার বিভাগের প্রধান ইব্রাহিম রইসি। তার কাছাকাছি রয়েছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক প্রধান আবদুল নাসের হেম্মাতি, সংস্কারবাদী সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহসেন মেহরালিজাদেহ। এ ছাড়া আছেন চারজন রক্ষণশীল ও কট্টরপন্থি প্রার্থী। তারা হলেন- সিনিয়র নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মকর্তা সাঈদ জলিলি, এক্সপেডিয়েন্সি কাউন্সিলের সেক্রেটারি মোহসেন রেজাঈ, আইনপ্রণেতা আলিরেজা জাকানি এবং আমির হোসেন গাজিজাদেহ হাশেমি। এসব প্রার্থীর মধ্যে শনিবার অর্থনীতি নিয়ে তিন ঘন্টা মুখোমুখি বিতর্ক হয়েছে।

এতে এক প্রার্থী আরেক প্রার্থীকে ঘায়েল করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ইরানের ওপর তিন বছর আগে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করেছেন। সেখানে মূদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধি পেয়েছে। বৃদ্ধি পেয়েছে বেকারত্বের সংখ্যা। এর প্রেক্ষিতে অর্থনীতির ওপর জোর দিয়ে শনিবারের বিতর্ক হয়। এরপর আরো দুটি বিতর্ক হওয়ার কথা আগামী মঙ্গলবার ও শনিবার। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা।

বিতর্কের প্রথম দিনে প্রথম অধিবেশনে কোনো মডারেটর ছিলেন না। এর পরিবর্তে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের উপস্থাপক একটি কাচের পাত্রে রাখা নম্বর বসানো বল তুলে নেন। তাতে প্রশ্ন লেখা ছিল। সেই প্রশ্ন প্রতিজন প্রার্থীকে করা হয়। তাদেরকে উত্তর দিতে সময় দেয়া হয় তিন মিনিট। তবে বিতর্কের এ সময়ে মূল প্রশ্ন থেকে বাইরে চলে গেছেন বেশির ভাগ প্রার্থী। এ সময় প্রার্থীরা একে অন্যকে আক্রমণ করে কথা বলেন এবং অর্থনীতিকে উন্নত করতে তাদের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের বিষয়ে বক্তব্য তুলে ধরেন। বিতর্কের দ্বিতীয় পর্যায়ে প্রতিজন প্রার্থীকে ৬ ফুট দূরত্বে বসানো হয়। তাদেরকে উত্তর দেয়ার জন্য সময় দেয়া হয় চার মিনিট। এ সময় প্রার্থীরা আবারো তাদের অর্থনৈতিক পরিকল্পনা তুলে ধরেন। সময় শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মাইক বন্ধ করে দেয়া হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ