সর্বশেষ
 গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের কমিটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন স্থগিতের আহবান জাতিসংঘের প্রথমবারের মতো সুচিকে আদালতে হাজির দেখানো হলো মুশতাকের মৃত্যু নিয়ে কূটনীতিকদের হৈ চৈ করার কিছু নেই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট সারকোজির ৩ বছরের জেল পুলিশ চরম ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের শাস্তি চান খাসোগির বাগদত্তা ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরো ৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫৮৫ লেখক মুশতাকের মৃত্যু: স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ে পুলিশের বাধা, গোটা দেশ অবরোধের হুমকি মুখোমুখি অবস্থানে তুরস্ক-ইরান, পাল্টাপাল্টি রাষ্ট্রদূত তলব

ব্লগার অভিজিৎ হত্যা মামলার রায় আজ

  |  ১৪:৫৮, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২১

কাণ্ডে জড়িত ছিলেন তা আমরা আদালতের সামনে তুলে ধরেছি। আসামিরা সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড পাবেন বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী নজরুল ইসলাম বলেন, আসামিদের সাজা দেওয়ার মতো কোনো তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি। আমরা আসামিদের খালাস দাবি করেছি।

এ মামলার আসামিরা হলেন- বরখাস্ত মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক ওরফে জিয়া, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন (সাংগঠনিক নাম শাহরিয়ার), আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ, আকরাম হোসেন ওরফে আবির, আরাফাত রহমান ও শফিউর রহমান ফারাবি। মেজর জিয়া এবং আকরাম হোসেন পলাতক। অপর চার আসামি কারাগারে আছেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে মোট ৩৪ সাক্ষীর মধ্যে ২৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। গত বছরের ১৩ মার্চ আদালতে ছয় আসামির বিরুদ্ধে মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। এরপর একই বছরের ১ আগস্ট ছয় আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর নির্দেশ দেন আদালত।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অমর একুশে গ্রন্থমেলা থেকে ফেরার পথে রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় টিএসসির সামনে অভিজিৎ ও তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যার ওপর ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যান অভিজিৎ। ওই ঘটনায় অভিজিতের বাবা অধ্যাপক অজয় রায় পরদিন শাহবাগ থানায় হত্যা মামলা করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ