সর্বশেষ

রায়হান হত্যার মামলা দ্রুত শেষ করার দাবি পরিবারের

  |  ১১:২৬, নভেম্বর ১৪, ২০২০

সিলেট মহানগরের বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশি নির্যাতনে মারা যাওয়া রায়হান হত্যা মামলা দ্রুত শেষ করার দাবি জানিয়েছেন নিহত রায়হানের মা সালমা বেগম।

শনিবার (১৪) নভেম্বর দুপুরে নিজ বাড়িতে বৃহওর আখালিয়া(বারো হামছায়া)সংগ্রাম পরিষদ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রায়হানের মা সামলা বেগম এসব দাবি জানান।

তিনি বলেন, সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনের আগের রাতে নীল শার্ট পরেই বেরিয়েছিলেন রায়হান। কিন্তু রায়হানের মরদেহে ছিল লাল শার্ট। এছাড়া মৃতদেহ হস্তান্তরের সময় তার মোবাইলও ফিরিয়ে দেয়নি পুলিশ।

এদিকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সিলেট জেলা জজ কোর্টের সাবেক পিপি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ জানান,ঘটনার দিন বন্দরবাজার ফাঁড়িতে কর্মরত থাকা এএসআই আশেক এলাহি, কনস্টেবল টিটু চন্দু দাস ও হারুনুর রশীদ রিমান্ড শেষে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিতে রাজী হননি।তবে তারা জবানবন্দি না দিলেও এই মামলার সুষ্ঠ বিচারের ক্ষেত্রে তা কোনো প্রভাব ফেলবে না বলে জানান তিনি।

বৃহত্তর আখালিয়া (বারো হামছায়া) সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক মখলিসুর রহমান কামরান সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

এ সময় তিনি বলেন,আমরা চাই ঘটনার সাথে জড়িত সবাইকে দ্রুত গ্রেপ্তার করা হোক। একই সাথে পিবিআই’র প্রতি আমরা আস্থা রাখতে চাই। কারণ পিবিআই আমাদের আশ্বস্হ করেছেন মামলার সুষ্ঠু তদন্ত হবে। আর যদি মামলার সুষ্ঠু তদন্ত না হয় তাহলে আবারও আমরা সিলেটবাসীকে নিয়ে আন্দোলন করবো।

লিখিত বক্তব্যে আকবরকে ধরতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় সিলেট জেলা পুলিশ এবং কানাইঘাট সীমান্ত এলাকার বাসিন্দা ও খাসিয়া সম্প্রদায়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয় এবং জড়িত সকলকে গ্রেফতারের পাশাপাশি ন্যায় বিচার দাবি করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এড.মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ,সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী,ইলিয়াসুর রহমান,সাবেক কাউন্সিলার জগদীশ চন্দ্র দাশ প্রমুখ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ