কানাইঘাটে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ-৮ সিলেট এর অভিযানে চুরি হওয়া গরু উদ্ধার

প্রকাশিত: ৮:১৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২৩ | আপডেট: ৮:১৮:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২৩

সিলেটের কানাইঘাটে গত ৫ আগস্ট (২০২৩) আলীম উদ্দিন (৫৬), পিতা-মৃত সিরাজুল হক, সাং-ছোটদেশ, থানা- কানাইঘাট, জেলা-সিলেট গরু চুরি হলে তিনি নিজে বাদী হয়ে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত নং-০৫ ( কানাইঘাট) সিলেট এ সি.আর মামলা নং-২৮৪/২০২৩ইং, মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত উক্ত মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ সুপার, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ -৮, সিলেটকে নির্দেশ প্রদান করেন। পুলিশ সুপার, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ -৮, সিলেট উক্ত মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ) জনাব-মোঃ কমর উদ্দিনকে তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত করেন। মোঃ রওশনুজ্জামান সিদ্দিকী অতিরিক্ত ডিআইজি (পুলিশ সুপার) ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ-৮ সিলেট নিজে সার্বিক নির্দেশনা ও তদারকির মাধ্যমে তদন্তকারী কর্মকর্তার বিভিন্ন সোর্স ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চোরাইকৃত ০৯টি গরুর মধ্যে (ক) ০১টি কালো রংয়ের গাভী গরু সঙ্গে ০১টি কালো রংয়ের ডেকা বাছুর, খ) ০১টি সাদা রংয়ের গাভী গরু সঙ্গে ০১টি সাদা রংয়ের ডেকা বাছুর, গ) ০১টি সাদা রংয়ের ডেকা গরু, ঘ) ০১টি লাল রংয়ের ডেকা গরু, ঙ) ০১টি লাল রংয়ের ডেকি গরু সহ সর্বমোট ০৭টি গরু দরখাস্তে বর্ণিত ১নং বিবাদী হেলাল আহমদ (৪৪), পিতা-মৃত ফয়জুল হক, সাং-কচুপাড়া, থানা-কানাইঘাট, জেলা-সিলেট এর গোয়াল ঘরে পাইয়া বাদীর শনাক্তমতে উপস্থিত সাক্ষীদের মোকাবেলায় জব্দ তালিকা মূলে জব্দ করেন। জব্দকৃত আলামত গরু গুলি বিজ্ঞ আদালতের তলবমতে উপস্থাপন করার শর্তে রক্ষণাবেক্ষণ করার নিমিত্তে মামলার বাদীর জিম্মায় জিম্মানামা মূলে প্রদান করেন। জিম্মানামায় সাক্ষী হিসাবে স্থানীয় ৬ নং কানাইঘাট সদর ইউ/পি, ০৩ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার আব্দুন নুর সহ উপস্থিত সাক্ষী মোঃ মানিক উদ্দিন, জালাল উদ্দিনদের স্বাক্ষর গ্রহণ করেন।