সিলেট নগরীর আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

প্রকাশিত: ৮:১৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৪ | আপডেট: ৮:১৬:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৪

সিলেট নগরীর আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০২৪ সম্পন্ন সম্পন্ন হয়েছে।
আজ বুধবার সিলেটের অন্যতম নারী শিক্ষার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে আনন্দঘন পরিবেশে ৩ দিন ব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০২৪ সম্পন্ন হয়। অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মো: জমির উদ্দিন-এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি জনাব আশফাক আহমদ, চেয়ারম্যান, সিলেট সদর উপজেলা পরিষদ এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন জনাব নাছরীন আক্তার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সিলেট সদর উপজেলা, সিলেট। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ মুহাদ্দিস আহমদ, প্রাক্তন অধ্যক্ষ, আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ এবং বর্তমান অধ্যক্ষ বিবিআইএস; শেখ তোফায়েল আহমেদ সেফুল, কাউন্সিলর, ৪ নং ওয়ার্ড, সিলেট সিটি কর্পোরেশন; আলম খান মুক্তি, সভাপতি, সিলেট মহানগর যুবলীগ, প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকমন্ডলী, অভিভাবক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। উল্লেখ্য যে, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ তারিখে প্রধান অতিথি উক্ত প্রতিযোগিতার শুভ উদ্বোধন করেন। পবিত্র কোরআন হতে তেলাওয়াত ও পবিত্র গীতাপাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়। সহকারী শিক্ষক, মো: ফরিদ উদ্দিন-এর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বার্ষিক ক্রীড়া পরিষদের সমন্বয়কারী সিনিয়র প্রভাষক তামান্না রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যের শুরুতে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন বাঙালির মহাজাগরণের পথিকৃৎ, স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা ও মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ স্বাধীন বাংলাদেশের জন্য প্রাণ উৎসর্গকারী সকল শহীদকে। তিনি আরো বলেন, ক্রীড়া শিক্ষা একটি গুরুত্বপূর্ণ ও মৌলিক বিষয়। আজকের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সকলের মাঝে ঐক্যের প্রতীক হিসেবে কাজ করবে। এছাড়া উপস্থিত অতিথিবৃন্দ খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চার বিভিন্ন ইতিবাচক দিক শিক্ষার্থীদের সামনে তুলে ধরেন। এরপর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি এবং উপস্থিত অতিথিবৃন্দ। প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে এবং নিবেদিতপ্রাণ শিক্ষকমন্ডলী সার্বিক কার্যক্রম তদারকি ও পরিচালনা করেন। এ ধরনের উদ্যোগের ফলে শিক্ষার্থীদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটবে এবং তা সামগ্রিক শিক্ষা কার্যক্রমকে আরো প্রাণবন্ত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন অতিথিরা। প্রতিষ্ঠান সূত্র জানায়, নিয়মিত শ্রেণি পাঠদানের পাশাপাশি সহশিক্ষামূলক বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ধারাবাহিকভাবে আয়োজন করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ তার সমাপনী বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমে সক্রিয় অংশগ্রহণের উপর গুরুত্বারোপ করেন এবং বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজনে সংশ্লিষ্ট সবাইকে তিনি ধন্যবাদ জানান।