সর্বশেষ
 নকশী বাংলা ফাউন্ডেশন সিলেটের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সাবেক সাংসদ দিলদার হোসেন সেলিম এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এম আসকির আলী গ্রীসে বিয়ানীবাজার এর যুবক নিখোঁজ।খুঁজে পেতে সাহায্য কামনা স্পেনের রাজার কাছে পরিচয় পত্র প্রদান করলেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সহজ হলো স্পেনের অভিবাসী আইন, সুবিধা পাবে বাংলাদেশিরা প্রফেসর সিরাজ ওয়াজিদ-এর ভ্রমণকাহিনী গ্রন্থ ‘ভারতের পথে পথে’ এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে গ্রীসে দুই ভাই এর খুনি শনাক্ত দুই নারীকে ‘কন্ট্রাক্ট ম্যারেজ’ করেছিলেন মামুনুল ফরেন ফ্রেন্ডশিপ অর্গানাইজেশন ট্রাষ্টের উদ্যোগে মাহে রমজানের কর্মসূচী বাস্থবায়ন স্পেনের মাদ্রিদ কমিউনিটির আঞ্চলিক সংসদ নির্বাচনে প্রচারণা

‘করোনা শেষ হওয়ার এখনও অনেক বাকি’

  |  ১৩:৪৫, এপ্রিল ১৩, ২০২১

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলেছে, কোভিড-১৯ মোকাবিলায় দ্বিধা এবং জটিলতার অর্থ হলো এই মহামারি অবসান হওয়ার এখনও অনেক বাকি। তবে জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রমাণিত নিয়মগুলো অনুসরণ করা গেলে এই মহামারি কয়েক মাসের মধ্যে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব বলে মনে করে সংস্থাটি। সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন ডব্লিউএইচও’র প্রধান ড. টেড্রোস আডানোম গেব্রিয়াসিস। আলজাজিরা ।

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমিত দেশের তালিকায় ব্রাজিলকে ছাড়িয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে গেছে ভারত। যুক্তরাষ্ট্রের পর এখন ভারতেই সবচেয়ে বেশি মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছে। দেশটিতে এখন ব্যাপক আকারে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। প্রায় একশ’ ৪০ কোটি জনসংখ্যার দেশটিতে এখন পর্যন্ত দশ কোটি ৫০ লাখ ডোজ টিকা প্রদান করা গেছে।

সোমবার ডব্লিউএইচও’র প্রধান ড. টেড্রোস আডানোম গেব্রিয়াসিস বলেন, ‘আমরাও সমাজ এবং অর্থনীতি পুনরায় খোলা দেখতে চাই। দেখতে চাই ভ্রমণ ও বাণিজ্য আবারও সচল হচ্ছে। কিন্তু এই মুহূর্তে বহু দেশে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রগুলো উপচে পড়ছে আর মানুষ মারা যাচ্ছে-আর এগুলো সম্পূর্ণভাবে এড়ানো সম্ভব।’ তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারি অবসানের এখনও অনেক বাকি। কিন্তু আমাদের আশাবাদী হওয়ার বহু কারণ রয়েছে। এই বছরের প্রথম দুই মাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর পরিমাণ কমে যাওয়ার মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে এই ভাইরাস এবং এর ভ্যারিয়েন্টগুলো থামানো সম্ভব।’

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত ডব্লিউএইচও টিম লিডার মারিয়া ভান কেরকোভ ওই সংবাদ সম্মেলনে জানান মহামারি খুব বেশি পরিমাণে বাড়ছে। গত সপ্তাহে আক্রান্ত বেড়েছে নয় শতাংশ। আর বিগত টানা সাত সপ্তাহ ধরে আক্রান্তের পরিমাণ বাড়ছে। একই সময়ে মৃত্যু বেড়েছে পাঁচ শতাংশ।

ড. টেড্রোস আডানোম গেব্রিয়াসিস বলেন কয়েকটি দেশে সংক্রমণ বাড়তে থাকলেও রেস্টুরেন্ট, নাইটক্লাবগুলো পূর্ণ থাকছে আর মার্কেটগুলোও খোলা থাকছে। আর এসব স্থানে সমাগম করা মানুষের খুব অল্প পরিমাণই সতর্কতা অবলম্বন করছে। তিনি বলেন, ‘কেউ কেউ মনে করছে অপেক্ষাকৃত তরুণ হলে করোনায় সংক্রমিত হলেও তাদের কিছু হবে না।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ