SylhetNewsWorld | গন্তব্য ইউরোপ, কিন্তু ইতালিতে এস্ট্রাজেনেকার টিকার বিশাল মজুদের সন্ধান - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ

গন্তব্য ইউরোপ, কিন্তু ইতালিতে এস্ট্রাজেনেকার টিকার বিশাল মজুদের সন্ধান

  |  ১৬:২৬, মার্চ ২৫, ২০২১

ইতালির একটি স্থাপনা থেকে এস্ট্রাজেনেকার প্রায় ২ কোটি ৯০ লাখ ডোজ করোনার টিকা মজুদ রাখার সন্ধান মিলেছে। এসব টিকার গন্তব্য ছিল ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নেতৃত্বাধীন কোভ্যাক্স কার্যক্রমের মাধ্যমে দরিদ্র দেশগুলো। ইতালির পত্রিকা লা স্টাম্পা’কে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে আরো বলা হয়েছে, ইউরোপিয়ান কমিশনের অনুরোধে সপ্তাহান্তে রোমের কাছে আনাগনিতে একটি ক্যাটালান কারখানা তল্লাশি করে ইতালির নিরাপত্তা রক্ষাকারী বাহিনী। এ সময় তারা মজুদ করে রাখা টিকার সন্ধান পায়। পরে এ অনুন্ধান সম্পর্কিত রিপোর্ট নিশ্চিত করে ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি। সেখান থেকে বেশ কিছু ব্যাচের ডোজ জব্দ করা হয়েছে। অন্যদিকে দুটি ব্যাচ পাঠানো হয়েছে বেলজিয়ামে। একটি ব্যাচে ১০ লাখ পর্যন্ত ডোজ থাকে।

অ্যাঙ্গলো-সুইডিশ প্রতিষ্ঠানের প্রতি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের যে অবিশ্বাস তার প্রতিফলন ঘটেছে এর মধ্য দিয়ে। কারণ, ২৭ জাতির সংগঠন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সঙ্গে ৩০ কোটি ডোজ টিকা দেয়ার চুক্তি আছে এস্ট্রাজেনেকার। কিন্তু জুনের শেষ নাগাদ তারা মাত্র ১০ কোটি ডোজ সরবরাহ দিতে পারবে বলে জানিয়ে দেয় ইউরোপিয়ান ইউনিয়নকে। তাদেরকে দেয়া এই টিকা কিভাবে ইতালিতে গিয়ে মজুদ হলো সে বিষয়ে পরিষ্কার উত্তর মিলছে না। সেখানে যে ২ কোটি ৯০ লাখ ডোজ টিকা উদ্ধার হয়েছে তা এক কোটি ৪৫ লাখ মানুষকে টিকা দেয়ার জন্য যথেষ্ট। ফরাসি সরকারের মুখপাত্র গাব্রিয়েল আত্তাল মন্ত্রীপরিষদের বৈঠকের পর সাংবাদিকদের বলেছেন, আমাদের উদ্যোগে রোমের কাছে মজুদ করে রাখা প্রায় ৩ কোটি টিকার সন্ধান মিলেছে। এখন ওই টিকাগুলোকে জব্দ করা হয়েছে। ফরাসি অন্য একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ওই টিকার কিছু ব্যাচ ছাড় দেয়ার বিষয় আটকে দেয়া হবে কিনা তা বিবেচনাধীন।
ওদিকে বুধবার এস্ট্রাজেনেকা বলেছে, ক্যাটালান স্থাপনায় যেসব ডোজ উদ্ধার করা হয়েছে তা যাওয়ার কথা ছিল ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের কাছে। বাকি টিকা যাওয়ার কথা ছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মাধ্যমে দরিদ্র দেশগুলোর কাছে। তারা এক বিবৃতিতে বলেছে, কোভ্যাক্স দেশগুলো বাদে অন্য কোথাও বর্তমানে এই টিকা রপ্তানির পরিকল্পনা নেই। কোভ্যাক্স কার্যক্রমের জন্য ছাড় দিতে বর্তমানে এক কোটি ৩০ লাখ ডোজ টিকার গুণগত মান পরীক্ষাধীন রয়েছে বর্তমানে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ