SylhetNewsWorld | বাকিতে সিগারেট না দেওয়ায় দোকানিকে মারধর - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ

বাকিতে সিগারেট না দেওয়ায় দোকানিকে মারধর

  |  ১৮:৩৮, মার্চ ১৯, ২০২১

মিশু ভাইকে চিনিস? এমন কথা বলেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেটের ক্যাম্পাস ফুড কর্নারের স্বত্বাধিকারী শাহ আলমকে এলোপাতাড়ি চড়-থাপ্পড় এবং কিল-ঘুষি।

বাকিতে সিগারেট না দেওয়ায় দোকানিকে এভাবেই মারধরের অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী শেখ সিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষার্থী। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেটে মারধরের এ ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শেখ সিয়াম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী। মারধরের সময় সিয়ামের সঙ্গে আরও তিনজন ছিল। তবে তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ভুক্তভোগী জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেটে তার দোকানের সামনে আড্ডা দিচ্ছিলেন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মিশুসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী। এ সময় সিয়াম বাকিতে সিগারেট চায়। বাকিতে সিগারেট দিতে না চাইলে সিয়াম ক্ষিপ্ত হয়ে যায়। পরে ছাত্রলীগের চার কর্মী এসে তাকে দোকানের ভেতর নিয়ে যায়।

শাহ আলম বলেন, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা এ সময় ‘মিশু ভাইকে চিনিস?’ বলেই আমাকে মারধর শুরু করে। এ সময় সিয়াম এলোপাতাড়ি চড়-থাপ্পড় দিতে থাকে। পরে তারা দোকানের গ্লাস টেনে দেয়; যাতে কেউ না দেখতে পারে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শেখ সিয়ামের সঙ্গে কথা বলতে তার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মিশু বলেন, চা ও সিগারেটের জন্য আমি এক ছোটভাইকে তার দোকানে পাঠাই। এতে দোকানি আলম তার কাছে সিগারেটের অগ্রিম টাকা চায়। ছোটভাই এসে বিষয়টি আমাকে জানালে আলমকে এসে টাকা নিয়ে যেতে বলি। পরে তারা দোকানে গেলে কথাকাটাকাটি ও ধাক্কাধাক্কি হয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মীর সঙ্গে দোকানি আলমের একটু ঝামেলা হয়েছিল। পরে আমি ও সভাপতি গিয়ে বিষয়টি সমাধান করে আসি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ