SylhetNewsWorld | বিদেশিদের সঙ্গে কাজ করাকে ‘জীবনের বড় ভুল’ বললেন আফগান দোভাষ - SylhetNewsWorld
সর্বশেষ
 স্পেনে অনুষ্ঠিত হলো বৃহত্তর নোয়াখালী সমিতি’র অভিষেক বাজেট অনুষ্ঠানে মেয়র আরিফের ঘোষণায় বিব্রত সাংবাদিকরা স্পেন থেকে আফগানিস্তান থেকে উদ্ধারকৃত ছয়জন বাংলাদেশীকে দেশে প্রত্যাবর্তন বাংলাদেশ দূতাবাস এথেন্স-এ ইলেক্ট্রনিক পাসপোর্ট সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন স্বাধীনতার সূবর্ন জয়ন্তিতে স্পেনে ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল সম্পন্ন বসিলায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়িতে অভিযান, আটক ১ জার্মানি থেকে অবৈধ বাংলাদেশিদের দ্রুত ফেরাতে চায় সরকার অন্যকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ দিলেন রুশ মন্ত্রী নর্থ মেসিডোনিয়ার হাসপাতালে আগুন, ১০ কোভিড রোগীর মৃত্যু সাবেক কর্মকর্তাদের দেশে ফেরার আহ্বান জানিয়েছেন তালেবান প্রধানমন্ত্রী

বিদেশিদের সঙ্গে কাজ করাকে ‘জীবনের বড় ভুল’ বললেন আফগান দোভাষ

  |  ১৬:৩৯, সেপ্টেম্বর ০১, ২০২১

আফগানিস্তান ছাড়তে না পারা এক আফগান দোভাষী বলেছেন, তার ‘জীবনের বড় ভুল’ ছিল যুক্তরাজ্য ও মার্কিন সেনাদের সঙ্গে কাজ করা। স্টিভ-ও ছদ্মনামের এই দোভাষী জানান, তিনি ২০০৯ সাল থেকে ২০ মাস মার্কিন সেনা ও ২০১০ সাল হতে ১৩ মাস ব্রিটিশ সেনাদের সঙ্গে আফগানিস্তানে কাজ করেছেন।

হাজারো আফগান নাগরিকদের মতো তিনিও দেশ ছেড়ে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মানুষের প্রচণ্ড ভীড়ের কারণে তিনি তা পারেননি। তার মতো কয়েক হাজার আফগান কর্মীদের দেশে রেখে যাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এই ব্যক্তি।

পশ্চিমা সেনাদের সঙ্গে কাজ করে এখন অনুতপ্ত কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, হ্যাঁ, আমি অনুতপ্ত। এটি ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল।

তার কথায়, মার্কিন ও ব্রিটিশ সেনাদের জন্য আমাদের ত্যাগ করতে হয়েছে। তাদের জন্য আমাদের বন্ধুদের জীবন দিতে হয়েছে। তাদের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়েছি। আর এখন তারা আমাদের রেখে চলে গেছে।

আল কায়েদাসহ হাক্কানি নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে আড়াই শতাধিক অভিযানে পশ্চিমা সেনাদের সঙ্গে কাজ করেছেন বলে এই দোভাষী দাবি করেছেন। তিনি বলেন, আমরা অনেক বিপজ্জনক অভিযানে অংশ নিয়েছি। ব্রিটিশ সেনাদের হেলমান্দে কাজের সময় প্রতিদিন আমাদের তালেবানের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হয়েছে। তারা আমাদের হামলা চালিয়েছে। কিন্তু আল্লাহর রহমতে আমি এখনও বেঁচে আছি।

দোভাষী বলেন, এখন পরিস্থিতি বদলে গেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের ওপর আমি ভীষণ হতাশ। আমি কী করব জানি না। আমি ও আমার বন্ধুরা এখনও সাহায্য খুঁজছি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ