সর্বশেষ
 আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই এসেছে বাঙালির সব অর্জন: তথ্যমন্ত্রী ইরানের নতুন প্রেসিডেন্টকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন ভারত টিকার টাকা ফেরত দেবে কি না, যা বললেন অর্থমন্ত্রী ইরানের ওপর থেকে ১০৪০টি নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে রাজি যুক্তরাষ্ট্র জেনে বুঝেই এনআইডি সেবাকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে আনছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একদিনে শনাক্ত সাড়ে ৫ হাজার ছাড়িয়েছে, মৃত্যু আরও ৮৫ বৃটিশ যুদ্ধজাহাজের দিকে গোলা ছুড়ল রাশিয়া বাঘার সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকিত স্মরনে প্যারিসে শোকসভা সুইজারল্যান্ডে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের মহিলা সম্পাদিকা সুলতানা খান ভারতে ধরা পড়ল করোনার ডেল্টা প্লাস প্রজাতি, আক্রান্ত ২১

পশ্চিমবঙ্গের দুই মন্ত্রীসহ ৪ নেতার জামিন

  |  ১৫:৪৯, মে ২৮, ২০২১

পশ্চিমবঙ্গের দুই মন্ত্রীসহ ৪ নেতার জামিন শুনানি দেশটির হাইকোর্টে আজ খুব কম সময়ের মধ্যেই শেষ হয়ে যায়। শুনানিতে আজ কিছুটা চাপেই পড়ে যান সিবিআইয়ের আইনজীবী ও সিলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা।

রাষ্ট্রপক্ষের ওই আইনজীবী আদালতকে বলেন, ওই চার নেতাকে জামিন দেবেন না। কারণ তা হলে তারা মামলায় প্রভাব খাটাতে পারেন। কারণ তারা প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব। পাশাপাশি মামলা ঠাণ্ডা ঘরেও চলে যেতে পারে।

তখন তুষার মেহতাকে আদালত প্রশ্ন করেন, ওই চার নেতা-মন্ত্রী আগেও প্রভাবশালী ছিলেন। এখন হঠাৎ প্রভাবশালী হয়ে গেলেন এমনটা নয়। তাহলে এখন জামিনের বিরোধিতা করছেন কেন। এখনও কি গ্রেফতারের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে?

একই সঙ্গে সিবিআইকে হাইকোর্টের পক্ষ থেকে আরও প্রশ্ন করা হয়, চার্জশিট জমা দেওয়ার পর গ্রেফতার কেন।

শুনানির শুরুতেই প্রধান বিচারপতি মন্তব্য করেন, এখন যদি অভিযুক্তদের জামিন দিয়ে মামলার শুনানি হয় তাহলে কি কোনও সমস্যা রয়েছে?

ওই প্রশ্নের উত্তরে সিবিআইয়ের আইনজীবী তুষার মেহতা বলেন, জামিনে আপত্তি নেই। তবে সেক্ষেত্রে কিছু শর্ত দিতে হবে। সেগুলি হল অভিযুক্তরা মামলা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে মিডিয়ার মুখোমুখি হতে পারবেন না, কোনও জামায়েতে যেতে পারবেন না। প্রয়োজনের কোর্টের আসতে হবে। সিবিআইয়ের ওই সওয়ালের পরই ৪ নেতাকে জামিনে মুক্তি দেয় হাইকোর্ট। ফলে এখন থেকে তাঁর সশরীরে তারা বৈঠক করতে পারবেন বা সরকারি কাজকর্ম করতে পারবেন। এমনটাই মনে করছেন আইনজীবীরা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ